রাজশাহীর আম - Rajshahir Am

বাংলাদেশের সর্বপ্রথম আমের উপরে ইকমার্স ওয়েব সাইট । ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন মুক্ত রাজশাহীর আম। হ্যাঁ বন্ধুরা, এটাই হচ্ছে আমাদের স্লোগান এবং মূল উদ্দেশ্য। বাংলাদেশে এই প্রথম বারের মত অনলাইনে সর্ববৃহত ই-কমার্স সাইট তৈরি করার লক্ষ নিয়ে আমরা পথ চলা শুরু করেছি। এই পথ চলায় আপনাদের সকলে সহযোগীতা এবং ভালোবাসায় আমাদের সফলতার পথ আরো সুগম করে তুলবে আশা রাখি। আমাদের প্রথম প্রজেক্ট হচ্ছে মৌসুমী ফল আম নিয়ে। আপনারা হয়তো অনেকে ই জানেন যে, বর্তমান সময়ে কিছু মুনাফা খোঁর ব্যবসায়ীর হাতে আমরা বন্দি। অধিক মুনাফা লাভের আশায় তারা আমাদের এই মৌসুমী ফল গুলোতে বিষাক্ত ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন মিশিয়ে বাজারে বিক্রয় করছে। ভাল ফল বাজারে না পেয়ে আমরাও এই সকল বিষাক্ত ফলগুলো নিয়ে খাচ্ছি। এতে করে আমাদের শরীরের কি কি ক্ষতি হচ্ছে তা আমরা জানতে পারছি না। তবে তা জানতে পারি বেশ কয়েকদিন পড়। যখন আমরা ডাক্তার এর কাছে যাই বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে। তখন ডাক্তার সাহেব জানায় যে, আপনার শরীরে এই এই রোগ ধরা পড়েছে। ভাবতে ভাবতে আমরা আর ভেবে পাই না যে, এই রোগ এর জীবাণু আমাদের শরীরে এলো কোথা থেকে। তো আসুন প্রথমে একটু জেনে নেই কি এই ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন সর্ম্পকে। ক্যালসিয়াম কার্বাইড কি? ক্যালসিয়াম কার্বাইড এক ধরনের কেমিক্যাল। যার সংকেত হলো CaC2। ইহা পানির সাথে বিক্রিয়া করে ইথিলিন গ্যাস আর চুন তৈরি করে। এই ইথিলিন গ্যাসকে পলিমার বিক্রিয়া করা হলে পলিথিন তৈরি হয়। মানে বলতে পারেন পলিথিন তৈরির কাঁচামাল। কিন্তু এই গ্যাসের উদ্ভিদের একটা শরীর বৃত্তীয় ফাংশন আছে তা হলো কাঁচা ফল কে পাক্তে সাহায্য করে। তাই মুনাফা খোঁর ব্যাবসায়ীরা ফল দ্রুত পাকাতে ক্যালসিয়াম কার্বাইড দিয়ে থাকে। ক্যালসিয়াম কার্বাইড দেওয়া ফল বিষাক্ত। এই ফল খেলে মানব দেহের বিভিন্ন জটিলতা ছাড়াও ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা আছে। *শ্বাসের সঙ্গে ক্যালসিয়াম কার্বাইডের গ্যাস গ্রহণ করলে তা ফুসফুসের জন্য ক্ষতিকর। সাধারণত এর ফলে শ্বাসকষ্ট এবং কাঁশি হয়। অতিমাত্রায় গ্রহণ করলে ফুসফুসে পানি জমে তীব্র শ্বাসকষ্ট হতে পারে। * ক্যালসিয়াম কার্বাইড ত্বকের সংস্পর্শে এলে জ্বালা পোড়া হয় এবং লাল হয়ে ফুলে যেতে পারে। * চোখের সংস্পর্শে এলে চোখেও জ্বালা পোড়া হয় এবং চোখের কর্ণিয়া বিনষ্ট হতে পারে। * ক্যালসিয়াম কার্বাইড মুখ, গলা এবং কোমল ঝিল্লির পর্দায় প্রদাহ সৃষ্টি করে। * ক্যালসিয়াম কার্বাইড থেকে উৎপন্ন অ্যাসিটিলিন গ্যাস অতিমাত্রায় শরীরে প্রবেশ করলে মাথা ঝিমঝিম করে, মাথাব্যথা, দুর্বলতা, শ্বাসকষ্ট, বুক ধড়ফড় করা, ডায়রিয়া, পেটে ব্যথা, বমিবমিভাব এবং বমি হতে পারে। এমনকি অ্যাসিটিলিন বিষক্রিয়ার ফলে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। দীর্ঘমেয়াদে ক্যালসিয়াম কার্বাইড এবং অ্যাসিটিলিনের মানবদেহের ওপর ক্ষতিকর প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে তেমন কোনো নির্ভরযোগ্য তথ্য পাওয়া যায় না। তবে বিভিন্ন সূত্রে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী আশঙ্কা করা হয় এর ফলে নানারকম দীর্ঘমেয়াদি স্নায়ুরোগ এমনকি বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার হতে পারে। গর্ভবতী মায়েরা কার্বাইড দিয়ে পাকানো ফল খেলে গর্ভস্থ শিশুর ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এই হলো বিষাক্ত ক্যালসিয়াম কার্বাইড। তো আসুন এবার জেনে নেই বিষাক্ত ফরমালিন এর সর্ম্পকে ফরমালিন কি ? ফরমালিন এক ধরনের পিজারভিটীভ। ইহা ফরমাল্ডিহাইড এর সাথে পানির মিক্সার। ফরমাল্ডীহাইড এক ধরনের এল্ডিহাইড। ইহাকে মিথানল এর সাথে জারন করলে তৈরি হয়। আর মিথানল হলো কাঠের দোকানে বার্নিশ করা সেই কেমিক্যাল। ইহা বাজারে স্প্রিট নামে পরিচিত। ফরমালিন সাধারনত মেডিকেল কলেজে লাশ সংরক্ষন এর কাজে ব্যবহৃত হয়। এছাড়া বিভিন্ন বায়োলজিক্যাল ল্যাবে ভিবিন্ন প্রানীর নমুনা সংরক্ষনে ব্যবহৃত হয়। আপনারা দেখবেন জাদুঘরে বিভিন্ন প্রায়নীকে বয়ামে পানির মত একটা কেমিক্যালে চুবিয়ে রাখা হয়। আসলে সেটিই ফরমালিন। এই ফরমালিন খুব ভালো পিজারভেটিভ। পিজারভেটিভ হইলো সেই ধরনের কেমিক্যাল যারা সব কিছু সংরক্ষন করে। পিজারভেটীভ এর ভিবিন্ন গ্রেড আছে। ফুড গ্রেড নন ফুড গ্রেড। নন ফুড গ্রেড গুলো খাওয়া যায় না আর সেগুলো চরম মাত্রায় বিষাক্ত। ফরমালিন হইল সেই নন ফুড গ্রেডের পিজারভেটিভ। কোন আমে যদি ক্যলসিয়াম কার্বাইড দেওয়া হয় তাহলে সেটি দ্রুত পাক্তে থাকে। সেটি বাজারে আসার পরেও পাকার কার্জক্রম চলতে থাকে। এক সময় ফলে পচন ধরতে থাকে সেটা ২ দিনের মাথায়। কোন আম ন্যাচারালি পাকলে পচন ধরে ৫ থেকে ৭ দিনের মাথায়। কিন্তু ক্যালসিয়াম কার্বাইড দেওয়া আম ২ দিনের মাথায় পচন ধরে। So ব্যাবসায়ীরা যদি ২ দিনের মদ্ধে ক্যালসিয়াম কার্বাইড দেওয়া আম বিক্রি না করতে পারে তাহলে তারা এর উপর ফরমালিন দিয়ে দেয়। এর পর নিশ্চিন্তে কয়েক দিন নিয়ে বিক্রি করে। হুম আমরা তো আপনাদের জানালাম যে, ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন কি, কি কি ক্ষতি হয়, ইত্যাদি। এখন একটু ভেবে দেখুন তো ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন মুক্ত ফল খাবেন নাকি যুক্ত ? মনে হয় আর খাবেন না। কারণ ক্ষতিকর জিনিস থেকে আমরা একটু দূরে ই থাকার চেস্টা করি। তো এখন কথা হচ্ছে আমরা তো আপনাদের ফল খাওয়া বন্ধ করে দিলাম। কারণ বাজারে বেশির ভাগ ফল ই ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন যুক্ত আম। কি... ঠিক তাই না ? না ভাই... আমরা আপনাদের ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন যুক্ত আম খাওয়া বন্ধ করে দিতে চাই এবং আপনাদের হাতের কাছে পৌঁছে দিতে চাই সম্পুন্ন ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন মুক্ত রাজশাহীর আম। ভাবছেন এটা কি করে সম্ভব। তাই না? তো আসুন আপনাদের বলি যে এটা কি ভাবে আমরা সম্ভব করছি। আমাদের সকলের পরিচিত এবং প্রিয় মুখ জামিল হোসেন সিজান ভাই রাজশাহী থেকে আমাদের নিজেস্ব বাগান এবং পাটনারদের বাগান থেকে আম সংগ্রহ করে তা কুরিয়ারের মাধ্যমে সারা বাংলাদেশের জেলা, উপজেলা, থানা, এবং পৌরসভা এলাকা পর্যন্ত পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করেছেন। তো আসুন আমরা সকলে মিলে ক্যালসিয়াম কার্বাইড ও ফরমালিন মুক্ত রাজশাহীর আম ক্রয় করে প্রকৃত শ্বাদের আম খাই এবং আসে-পাশের লোকদের খেতে সহযোগীতা করি। : যেভাবে আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন : ----------------------------------------------------- আমাদের ওয়েব সাইট - https://www.rajshahiram.com আমাদের ইমেইল - rajshahiram@gmail.com আমাদের ফেসবুক পেজ - https://www.facebook.com/RajshahirAmLTD আমাদের ফেসবুক গ্রুপ - https://www.facebook.com/groups/RajshahirAmLTD আমাদের -instagram https://www.instagram.com/rajshahiramchatbot/ আমাদের twitter https://twitter.com/rajchatbot আমাদের ইউটিউব চ্যানেল - https://www.youtube.com/channel/UCOSGaZ9ldzUeFHTjR6eqSiw আমাদের সাথে সরাসরি কথা বলতে WeChat : RajshahiAmChatbot imo : +8801957771183 Viber :+8801957771183 Skype : Rajshahiram Chatbot আমাদের কন্টাক্ট নাম্বার : �+8801957771181, �+8801957771182,�+8801957771183, �+8801957771184,�+8801957771185 © রাজশাহীর আম - Rajshahir Am